যে কারণে ক্রিকেট খেলে না চীন, রাশিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স! – RBC

যে কারণে ক্রিকেট খেলে না চীন, রাশিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স!

প্রকাশ: ফেব্রুয়ারি ১৫, ২০২৪

আরবিসি নিউজ, ডেস্ক:

বর্তমান বিশ্বে ক্রিকেট বিশ্বের জনপ্রিয় খেলাগুলির মধ্যে অন্যতম। এটি ১৯ শতকে ব্রিটিশরা শুরু করেছিল। তবে ক্রিকেট খেলা শুরু থেকেই জনপ্রিয়তার দিক দিয়ে শীর্ষে রয়েছে। যদি বর্তমান সময়ে এর ব্যপ্তি হয়েছে অনেক। ইংল্যান্ডকে ক্রিকেটের জনক বলা হয়। এরপর বিশ্বের বিভিন্ন দেশে খেলা শুরু হলেও এখনো পর্যন্ত শক্তিধর দেশগুলোকে ক্রিকেট খেলতে দেখা যায় না, কেন জানেন? আসলে ব্রিটিশরা যে দেশে গিয়েছিল সেখানেই এই খেলাটির জনপ্রিয়তা বাড়তে থাকে। কিন্তু যেখানে তারা শাসনাধীন চালাতে পারেনি সেখানে এই খেলাটির উদ্ভব হয়নি। এছাড়াও ক্রিকেট সেইসব দেশে পৌঁছাতে পারেনি যারা আর্থিকভাবে সচ্ছল ছিল না। কিন্তু আপনি কি জানেন এমন অনেক শক্তিশালী দেশ রয়েছে যেখানে আজও ক্রিকেট খেলা হয় না। ভারতীয় উপমহাদেশের কথা বললে পাকিস্তান, বাংলাদেশ, আফগানিস্তান এবং শ্রীলঙ্কায় ক্রিকেট খুবই জনপ্রিয়। কিন্তু চীন একমাত্র দেশ, যেখানে কেউ ক্রিকেট খেলে না বা কেউ পছন্দ করে না। চীনে কখনো বৈশ্বিক ক্রীড়াকে গুরুত্ব দেওয়া হয় না। বলা হয় যে, চীন, রাশিয়া, জার্মানি, ফ্রান্স ক্রিকেট খেলে না, তার কারণ কখনোই তারা ইংরেজদের অধীনে ছিল না। একইভাবে জাপান, আমেরিকা, সুইজারল্যান্ড, রাশিয়া, ব্রাজিল ও কিউবাতেও ক্রিকেটের নাম নেই। এই দেশগুলোতেও ক্রিকেট খেলা হয় না বা দেখা যায় না। ১৯ শতকের দিকে বহির্বিশ্বের সাথে জাপানের কোন বিশেষ যোগাযোগ ছিল না। ব্রিটিশরা জাপানের মতো দেশে পৌঁছায়নি। যাইহোক এখানে ক্রিকেটের মতোই বেসবল খেলা হয়, যা একটি আমেরিকান খেলা। ফুটবলের মত গোটা বিশ্বের মানুষ ক্রিকেটকে পছন্দ না করার কারণ হলো এটি সময়সাপেক্ষ। অর্থাৎ একটি ফুটবল ম্যাচের সর্বোচ্চ ৯০ মিনিট স্থায়ী হয়। কিন্তু সেইসময় শুধু ক্রিকেটের দীর্ঘতম ফরম্যাট (টেস্ট খেলা) ছিল, যা পাঁচ দিন স্থায়ী হয়। যদিও পরবর্তীকালে, সীমিত ফরম্যাটের খেলা চালু হলেও, বিশ্বের সেইসব দেশগুলিতে আর ক্রিকেট চালু হয়নি।